Ads by

 

Aby

Aromatic radish not only enhances the sensation of food, it has many medicinal qualities. The leaf is well-known throughout the sub-continent, serving as a cure for many diseases, including alleviating colds, increasing digestion and controlling diabetes.



Understand that radiation acts as an antidote to certain diseases.

In the treatment of diabetes:
Evidence for the efficacy of radiation has been found in the treatment of type 2 diabetes. Radiation helps reduce blood sugar or sugar, cholesterol and triglyceride. To get maximum results, you can eat a month of pulverized powder. The anti-oxidant that is in the gallbladder maintains the function of the heart while keeping the sugar levels under control.

Indigestion:
Radiance helps increase digestion. Remedies for digestive problems. Chest irritation, stomach upset, constipation! Drink a glass of hot water with radiant heat. Get relief

Preventing Heart Attack and Stroke:
Radiance contains herbal ingredients that protect the immune system, such as heart attacks and strokes. Increases cardiovascular performance.

In cold cough:
Colds fight against any disease, cold and other infections caused by cold. If you have respiratory problems, heat two to three teaspoons of water for 10 minutes. Put it on a cup of soaking water. Flu, colds and coughs can be relieved. It also helps to cure fever.

To relieve pain:
Radiant oil relieves the pain of a rash, wrinkles, anything under pressure, or any common or chronic pain. Massage the head of migraine and scalp oil into the head, it provides relief.

সুগন্ধি তেজপাতা খাবারের কেবল রসনাই বাড়ায় না, এতে রয়েছে অনেক ঔষধী গুণ।
ঠান্ডা-কাশি দূরীকরণে, হজমক্রিয়া বাড়ানোয় ও ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখাসহ অনেক রোগের দাওয়ায় হিসেবে কাজ করে উপমহাদেশ জুড়ে অতি পরিচিত এই পাতা।

জেনে নিন তেজপাতা কোন কোন রোগের প্রতিষেধক হিসেবে কাজ করে।

ডায়বেটিসের চিকিৎসায়:
টাইপ ২ ডায়বেটিসের চিকিৎসায় তেজপাতার কার্যকারিতার প্রমাণ পাওয়া গেছে। তেজপাতায় রক্তে শর্করা বা চিনি, কোলেস্টেরল কমাতে ও ট্রাইগ্লিসারাইড কমাতে সহায়তা করে। সর্বোচ্চ ফল পেতে তেজপাতার গুঁড়ো করে টানা এক মাস খেতে পারেন। তেজপাতায় থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট শরীরের সুগার লেভেল নিয়ন্ত্রণে রাখার পাশাপাশি হৃৎপিণ্ডের কার্যক্রম ভালো রাখে।

বদহজমে: 
তেজপাতা হজমক্রিয়া বাড়াতে সহায়তা করে। হজমক্রিয়ায় সমস্যা থাকলে তা সারিয়ে তোলে। বুক জ্বালাপোড়া, পেট ফাঁপা, কোষ্ঠকাঠিন্য! তেজপাতা দিয়ে গরম করা এক গ্লাস পানি পান করুন। স্বস্তি পাবেন।

হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোক রোধে:
তেজপাতায় এমনসব ভেষজ উপাদান আছে যা হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের মতো রোগ প্রতিরোধ হৃদ্‌যন্ত্রকে রাখে নিরাপদ। বাড়ায় হৃদ্‌যন্ত্রের কার্যক্ষমতা।

ঠান্ডা-কাশিতে:
ঠান্ডা জনিত যেকোনো রোগ, ফ্লু ও অন্যান্য সংক্রমণ রোধে লড়াই করে তেজপাতা। শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা হলে, পানিতে দুই-তিনটি তেজপাতা দিয়ে 10 মিনিট গরম করুন। এই পানিতে ভেজানো একটি কাপর বুকের ওপর রাখুন। ফ্লু, ঠান্ডা ও কাশি থেকে আরাম পাওয়া যাবে। জ্বর সাড়াতেও সহায়তা করে তেজপাতা।

ব্যথা উপশমে:
তেজপাতার তেল বাতের ব্যথা, মচকানো, কোনো কিছুর চাপ লেগে আঘাতপ্রাপ্ত স্থানে বা যেকোনো সাধারণ বা দীর্ঘস্থায়ী ব্যথা উপশম করে। মাইগ্রেন ও মাথাব্যথায় কপালি তেজপাতার তেল মালিশ করলে আরাম পাওয়া যায়।

Post a Comment Blogger

Assalamu Alaikum, those of you who are commenting on our site must post related to our post, then we will make it public, we will not accept any post in any chapter, we will cancel it.

 
Top